একটি বাচ্চার স্পীচ থেরাপি কখন প্রয়োজন

অটিজম , ডাউন সিনড্রোম, আর্টিকুলেশন ডিফিকাল্টিস , স্ট্যামারিং , হিয়ারিং লস , মেন্টাল রিটার্ডেশন ইত্যাদি সমস্যা থাকলে – স্পীচ থেরাপির প্রয়োজন। স্পীচ থেরাপিস্টরা এই ধরণের বাচ্চাদের বিভিন্ন verbal টেকনিক এবং oral exercise -এর মাধ্যমে কথা শেখানোর চেষ্টা করা হয়। স্পীচ -এর দুটি স্কীল –
১. Receptive language skill :- বাচ্চা কতটা বুঝতে পারছে।
২. Expressive language skill :- বাচ্চা বুঝতে পেরে নিজেকে কতটা বহিঃপ্রকাশ করতে পারছে।
এছাড়াও আরো একটি স্কীল এর ওপরেও কাজ হয়, সেটি হল – Pre -verbal skill ( যার অর্থ কথা বলার পূর্বের অবস্থা , যেমনঃ Eye-contact, attention level এবং cognitive level )।
বাচ্চার এই ধরণের সমস্যাগুলি যত তাড়াতাড়ি identify করে স্পীচ থেরাপি শুরু করানো যাবে তত তাড়াতাড়ি বাচ্চাকে বোঝাতে ও কথা বলাতে শেখানো সম্ভব হবে।

Add Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *